Hits: 3

মা’দের ভুূল, ভোগান্তি সন্তানের

0

একটা দায়িত্ব পালনে অনেকের দ্বারাই অনেক ভুল হয়ে থাকে, তবে জরুরি হচ্ছে, ভুল যে হচ্ছে সেটা অনুভব করে শুধরানো। আর সঠিক সময়ে না শুধরানোর মাসুলটা পরবর্তীতে next generation কে দিতে হয়।
অনেক মা’রা নিজের ছেলে-মেয়েকে একেবারে তুলতুলে করে লালন পালন করেন। মেয়ে যাতে ঘরের কোনো কাজ না করে, ভাবখানা এমন- “সে কেনো কাজ করবে”? কাজের বুয়া আছে কি করতে? তবে আমার দেখা মতে এমন টাইপের মেয়েরা বিয়ের পর শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে ধাক্কা খায়। আর কিছু বাবারা আছেন সারাদিন তো অফিসেই থাকেন, ছুটির দিনে পর্যন্ত নিজের ছেলেকে নিয়ে বাজারে যাওয়ার টেনিং দেন না। যে কারণে- ফুলবাবুর মতো লালিত পালিত এসব ছেলেরাও বিয়ের পর ধাক্কা খায়। কোন বাজারে ভালো মাছ উঠে- তাও জানে না। সুতরাং- সন্তানদের ভোগান্তি!


অনেকে হয়তো বলবেন- one stop mall তথা স্বপ্ন, আগোরা থাকতে- বাজারের আর চিন্তা কিসের? তাহলে বলবো- সমাজের সব পরিবারের পক্ষে এটা সম্ভব নয় যে সবসময় অধিক দাম দিয়ে এসব দোকান থেকে পণ্য ক্রয় করা। মাঝেমধ্যে পারা যায়, তবে রোজকার বাজারে “স্বপ্ন”তে যাওয়ার সামর্থ্য আছে ক’টা ফ্যামিলির?


সুতরাং, যা বলছিলাম- মা-বাবাদের অতিরিক্ত ভালোবাসা অনেক সময় তাদেরকে এতোটাই আলসে ও বেয়াদব করে তুলে- যে পরবর্তীতে মা এক গ্লাস পানি চাইলেও সন্তানদের মধ্যে ‘কেউ শুনেও বসে থাকে, কেউ একে ওকে চাপাচাপি করে, কেউ বা বিরক্তি নিয়ে দেয়। সুতরাং, সবসময় ভালোবাসা নয়, এটাও নিয়ন্ত্রণের প্রয়োজন হয়।

Hits: 3

Comments
Loading...