সন্তানকে প্রহারের সময়…

0 ৪০

সন্তান লালন পালন করতে বিরক্ত লাগবেই, মেজাজ খারাপ হবেই। তারা জিদ দেখাবে, আপনার কথা শুনবে না, খাবার নষ্ট করবে, টয়লেটে যাবে না, ঘর নোংরা করবে, কয়েকটা সন্তান থাকলে পরষ্পর মারামারি করবে; আপনি চিৎকার দিতে থাকবেন, শুনবে না। আর কতো? এক পর্যায়ে আপনি সহ্য করতে না পেরে তাদের মারবেন। যে মারটা অনেক সময় হয়ে যায় “একটু বেশিই”।

হ্যাঁ, শাসন করার প্রয়োজন আছে, অনেক সময়ই। কিন্তু রাগের মাথায় অনেক সময় আমরা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাই, বেধড়ক মার দেই, কিংবা এমন জায়গায় প্রহার লেগে গেলো, যাতে হয়ত তার অনেক বড় খুঁত হয়ে গেলো। মাস খানিক আগে শুনেছিলাম- এক মা নাকি এমন মার দিয়েছে যে, সন্তান কিনা মারা গেছে।
আমরা জানি না, ঘটনার পিছনের খবর। সেই সন্তানটা তার মা-কে কতটা যন্ত্রণা দিয়েছিলো, যে তার মা নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে নি। অথচ, লক্ষ্য করে দেখবেন- মা-রা প্রহার করলেও যখন রাগ ঠান্ডা হয় কিংবা যখন বাচ্চাটা উঃ উঃ করে কাঁদে তখন কিন্তু সেই মা-ই সন্তানকে বুকে টেনে নেয়। আফসোস করে। ইশ! কেনো এভাবে মারলাম?!
তাই একটা সহজ টিপস দেই। অহেতুক কিংবা হাস্যকর মনে হলেও কার্যকর। যখন রাগ বেশি হবে, আপনার হাত উঠবে মারার জন্য তখন সামনে থাকা মাটি কিংবা টেবিলে সেই হাতটি সজোরে আঘাত করুন। ব্যাথ্যাটা যখন আপনার হাতে লাগবে তখন দেখবেন আপনার মেজাজ এক মিনিটের ব্যবধানে ঠান্ডা হচ্ছে। দ্বিতীয়ত, বিরক্ত করলে কিছুক্ষণ চুপ থাকবেন কিছু বলবেন না। নিজেকে সময় দিয়ে ‘শয়তান থেকে আল্লাহ’র কাছে মুক্তি চেয়ে- আবার নিজের দায়িত্বে লেগে যান। ইনশাআল্লাহ উপকৃত হবেন।

Hits: 0

Comments
Loading...