দায়িত্ব: আগে সামর্থ্য পরে সাড়া দেয়া ..

0 ৫৬

দায়িত্ব বা দায়িত্বানুভূতি ; ইংরেজীতে responsibility..
মানুষের সাথে লেগে থাকা একটি শব্দ । প্রত্যেকটি মানুষ তাদের জীবনের দীর্ঘ জার্নিটাই করে যাচ্ছে শুধু দায়িত্বের জন্য; স্রষ্টা তাঁর প্রত্যেকটি সৃষ্টিকে সৃষ্টি করেছেন নির্দিষ্ট দায়িত্ব পালনের জন্য..
আমরা যদি চারদিকে তাকাই তাহলে দেখবো নগরের ব্যস্ত জীবনের চাকা ঘুরপাক খাচ্ছে দায়িত্ব-কর্তব্য চক্রকে সম্পন্ন করার জন্য..পৃথিবীর এই দায়িত্বের দিকে তাকালে অবাক হতে হয়; নিরন্তর বয়ে চলা এক প্রকিৃয়া..

পৃথিবীর এই দায়িত্বচক্রের দিকে তাকালে আমরা দায়িত্বকে নতুনভাবে জানতে পারব.. Responsibility এটাকে যদি একটু ব্যবচ্ছেদ করি তাহলে হবে response -ability যদি সহজ করে দেখা যায় তাহলে ability তারপর response অর্থাৎ আগে সামর্থ্য বা নিজের সক্ষমতা (ability) পরে সারা দেয়া বা পদক্ষেপ গ্রহণ (response) করা । যার যতটুকু সামর্থ্য আছে সে ততটুকু ক্ষমতাকেই যথাযথভাবে কাজে লাগাবে এটাই দায়িত্ববা দায়িত্বানুভূতি ..

কাজের জন্য যারা সদা তৎপর ; কাজ অনুরাগী তারা দায়িত্বকে এভাবেই চিনে থাকে। তারা তাদের অবস্থান ও অবস্থাকে কখনোই শর্তের গন্ডিতে বাধেনা; তারা তাদের সামর্থ্যকে অন্ধ করে দেয়না ; তারা কখনোই কাজকে সাফল্য বা ব্যর্থতার শর্ত দিয়ে বেধে রাখেনা..
তাদের আচরণ গুলোই হয় প্রোডাক্টিভিটি সম্পন্ন .. তারা তাদের কাজ বা কাজের মূল্য অনুযায়ী পসন্দকে সাজায়না .,
বরং তাদের অনুভূতি ও সামার্থ্য অনুযায়ী পসন্দকে সর্তক করে তোলে..

কিন্তু সচারচর আমরা যা করি তাহল আগে দায়িত্বকে দেখি; তারপর সে অনুযায়ী কাজ করতে চেষ্টা করি; কাজের প্রতি আমাদের কোন অনুভূতির সৃষ্টি হয়না তাই আমাদের যতটুকু সামর্থ্য থাকে ততটুকুও কাজে লাগাতে ভুলে যাই বা অনেক কষ্ট হয়ে যায়..
কাজ বা দায়িত্ব এরজন্য প্রয়োজন নিজের সামার্থ্য কে সুক্ষ্নভাবে কাজে লাগানো; যার জন্য দরকার দৃঢ়তা ও দায়িত্বের প্রতি স্বচ্ছ অনুভূতির সৃষ্টিকরা..

source: Stephen R. Convey

Hits: 0

Comments
Loading...