Hits: 1

কর্মক্ষেত্রে নারী ও কিছু খিস্তি খেওর

0
dalia
Dalia Mogahed

মুসলিম মেয়েদের Public Approach নিয়ে অনেক কথা। খিমার পরা একটা মেয়ে Media বা Public place এ নিজের কোন প্রতিভা তুলে ধরবে, এটা সাভাবিকভাবে নিতে অনেকের খুব আপত্তি। কিন্তু যখন Dalia Mogahed Ted Talk (https://www.facebook.com/dalia.mogahed.9?pnref=story) এ গিয়ে অসাধারণ বক্তব্য দিয়ে আসে, বড় বড় মিডিয়া চ্যনেলে যুক্তি দিয়ে সাদা গুলারে সাইজ করে আসে, তখন সবাই সেটা বাহবা দেয়। ফেসবুকে হাজার হাজার শেয়ার ও হয়।

যখন একজন মুসলিম নারী বড় বড় প্রতিষ্ঠানে ভূমিকা পালন করার পাশাপাশি পরিবারের দেখাশুনাও করে তখন তার প্রশংসা করা হয়।

হাসপাতালে গিয়ে যখন আপনি নিজের জন্য একজন মহিলা দাক্তার খুঁজেন, তখন কিন্তু আপনার মনে থাকে না যে আপনি এখান থেকে বেরিয়ে কোথাও হয়তো বলবেন, মেয়েদের কাজ না করে বড়িতে থাকাই ভাল। সুযোগ পেলে মুসলিম নারীরা তাদের যোগ্যতা দিয়ে মানুষের কল্যানে সব সেক্টরেই ভূমিকা রাখছে।

কিন্তু এই এতদূর পর্যন্ত যেতে, একটা মেয়ের নিজের প্রতিভা যোগ্যতা দিতে অনেক কঠিন হয়ে পড়ে কখনো। নানা দল মতের গিজ গিজানি চারিদকে। আর সামনে এগোতে চাইলে পেছন থেকে সব থেকে বেশি টেনে ধরে মেয়েরাই মেয়েদের। নানা কথা, আকারে, ইংগিতে, গ্রুপে আলোচনায় চলতে থাকে।

এর মধ্যে দিয়েই মুসলিম নারীরা নিজদের মর্যাদা ধরে রেখেই বিশ্বের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজে ভূমিকা রাখছে।

এই তিন মহিলা কোর্টে কেস লইড়া পত্থমবাড়ের মত বুয়েটে ভর্তি হয়েছিল
এই তিন মহিলা কোর্টে কেস লইড়া পত্থমবাড়ের মত বুয়েটে ভর্তি হয়েছিল

একটি উদাহরণ: এই তিন মহিলা কোর্টে কেস লইড়া পত্থমবাড়ের মত বুয়েটে ভর্তি হয়েছিল। আর তারা না লড়াই করলে আজকে Syeda Sultana Razia (https://www.facebook.com/syeda.s.razia?hc_location=ufi) বুয়েটের কেমিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর এমন প্রভাবশালী শিক্ষক ও হয়তো হতে পারতেন না। এরকম করে প্রতি পদে পদে লড়াইয়ের উদাহরণ পাওয়া যাবে। মুসলিম সমাজ যদি বুঝতো সময়ের প্রয়োজন,মেয়েদের শিক্ষার প্রয়োজন, তাহলে এই অবস্থা হয়?

12832425_10201363503804867_10434460857793577_n
তোমাদের শুধু ঘরে থাকাই উত্তম

সহস্র বছর ধরে মুসলিম নারীদের বুঝানো হয়েছে তোমাদের শুধু ঘরে থাকাই উত্তম। এর মধ্যে লেখাপড়া থেকে বঞ্চিত হয়ে মুসলিম নারীরা যতটা পেছনে পরেছিল, তাদের কে Public Domain গুলো থেকে যেভাবে দূরে রাখা হয়েছিল, সেটির মাশুল হিসেবে পশ্চিমারা বলার সুযোগ পেয়ছে যে ইসলাম নারীকে অধিকার দেয়না।সেই অভিযোগ খণ্ডাতে, নারীদের নিজেদেরকেই এগিয়ে আসতে হচ্ছে। এক্ষেত্রে আরেকটি মাশুলও দিতে হচ্ছে, আর সেটি হল অনেক মুসলিম নারীরা পশ্চিমাদের সেই প্রপাগ্যান্ডার ফাদে পরে ইসলাম থেক দূরে সরে গ্যাছে। নারী অধিকারের তকমা মুখে দিয়ে তাদেরকে বোঝানো হচ্ছে ইসলাম হল সেকেলে একটা ধর্ম যা নারীদের পেছনে ফেলে রাখে।

কিন্তু এই শতাব্দী ইনশাআল্লাহ মুসলিম নারীদের পদভারে মুখরিত হবে। নিজেদের যোগ্যতা দিয়ে, সম্মানের সাথে তারা ইসলামের সৌন্দর্য বিলাবে সমানভাবে।

Hits: 1

Comments
Loading...