Hits: 0

পাবলিক দেখতে উৎসুক আর আমরা দেখাতে আগ্রহী!

0

সম্প্রতি এক বিয়ের অনুষ্ঠানে এক আন্টি আমাকে দেখে বলেন-” আরে! তুমি এতো কালো হয়ে গিয়েছো কেনো”? মনে মনে বলি-“আন্টি, আমি যেমন ছিলাম তেমনই আছি, তবে আজ সবাই দু-তিন ঘন্টার জন্য কৃত্রিম ফর্সা রঙ ধারণ করেছে। তাই সবার মাঝে আমাকে আলাদা লাগছে”।

জানি না- যেকোনো অনুষ্ঠানে ফর্সা হয়ে যাওয়ার মানসিকতা কিভাবে আমাদের সমাজে ঢুকেছে- যেকারণে পার্টিতে স্বাভাবিকভাবে গেলেও অস্বাভাবিকভাবে দেখা হয়। আমরা কি আমাদের গায়ের রঙ নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগছি? যেকারণে লুকাচ্ছি? আমরা কি শীতপ্রধান দেশের সাদা চামড়ার মেয়েদের দেখে আকৃষ্ট? তাদের মতো হতে চাচ্ছি? তাদের প্রসাধনী সামগ্রীর পরীক্ষা করছি আমাদের শরীরের ওপর? লাভ হচ্ছে? এদিকে, বিদেশে কেউ গেলে তাকে আসার সময় বলে দিচ্ছি আমার জন্য ওমুক ব্র্যান্ডের মেইকআপ বক্স বা লিপস্টিক আনতে। আমাদের মানসিকতা এমন হলো কেনো? পাবলিক আমাদের সৌন্দর্য দেখতে উৎসুক আর আমরা পারি তো কৃত্রিমতা মিশিয়ে হলেও দেখাতে উৎসাহিত! মানসিক বিকৃতি ঘটছে আমাদের…

আরেকটা বিষয় দেখুন- আমরা ঘরে স্বামীকে টার্গেট করে সাজি না। হ্যাঁ, এটা মানি, সবসময় মুড থাকে না। তবে আরো আশ্চর্যের বিষয় হলো অনেক স্বামীরা ঘরে তাদের স্ত্রীরা সাজুক এটার গুরুত্ব বুঝেন না। উনারা চান- সেজেগুজে থাকা বউকে বাইরে নিয়ে সবার সামনে ঘুরতে, সবাই তাদের বউ এর সৌন্দর্যের সুনাম করবে- ‘ওমুকের বউ কি সুন্দর’! (যেখানে সুন্দরের সংজ্ঞা হচ্ছে গায়ের রঙ,সাঁজ ও অলঙ্কার)। আমি মনে করি- এমন স্বামীরা মারাত্মক বোকামী করছে- কারণ যে জিনিস শুধু তাদের দেখার সেটা তারা সবাইকে দেখাচ্ছে। নিজের পায়ে নিজেই কুড়াল মারা কাকে বলে!

 
যাই হোক আমাদের মেয়েদের নিজের স্বামীর কথায় হোক কিংবা কোনো আত্মীয় ‘কালো’ বললো- এজন্য নিজেদের ক্ষতি নিজেই ডেকে আনার দরকার নেই। আমাদের মাথায় এই জ্ঞানটুকু রাখা উচিত- সমাজের কিছু নষ্ট চোখ আমাদের সৌন্দর্যকে কিভাবে মাপজোক করে দেখছে। তাই আমাদের-
# নিজ নিজ ধর্ম মানতে হবে।
# দৈহিক প্রদর্শনীর অনৈতিক চিন্তা বাদ দিয়ে মানসিক বিকাশ সাধন করতে হবে। সেজন্য ভালো বই পড়তে হবে।
# বিদেশে কেউ থাকলে ভালো বই নিয়ে আসার কথা বলতে হবে।
# আল্লাহ যা দিয়েছেন তাতে অনুগ্রহশীল হতে হবে।
# পোশাক ও আচরণে মার্জিতভাব অবলম্বন করতে হবে।

সবশেষে, সামাজিক সমস্যাগুলো জিইয়ে আছে আমাদের দোষের কারণে, তাই আগে আমরা ভালো হই…

Hits: 0

Comments
Loading...