Hits: 4

আত্মশুদ্ধি চর্চাটা বোধ হয় আমরা কমই করি…

0

আত্মশুদ্ধি চর্চাটা বোধ হয় আমরা কমই করি- যেখানে এর প্রথম ধাপ হচ্ছে ‘আল্লাহ আমাকে দেখছেন’। আর ‘আল্লাহ দেখছেন’- এই মনোভাব না থাকায় আত্মসমালোচনাও হচ্ছে না। অতঃপর আমরা যারা নিজেদের ঈমানদার বলে দাবি করছি তাদের অন্তরে মূলত ব্যাধি রয়েই গেলো। যে ব্যাধি তাদের মনে তাক্বওয়া সৃষ্টিতে বাঁধা দিচ্ছে।
এভাবে ধাপে ধাপে আত্মশুদ্ধির পর্বগুলো বলে গেলেন ডা. মানজুর-ই-ইলাহী। লেন্ডমার্ক সেনসেসান হল এর সামনের সারিগুলোতে পুরুষ এবং পিছনে মহিলাদের উপস্থিতি, বক্তার জ্ঞানগর্ভমূলত বক্তব্য, এর পরবর্তী প্রশ্ন-উত্তর পর্বে একেকজনের প্রশ্নে প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছিলো ২২তারিখের ‘আত্মশুদ্ধি’ বিষয়ের ওপর আয়োজনটি।

এদিকে, ইসলামের ব্যাপারে আমাদের মধ্যে সবসময় একটা বিভ্রান্তি, দ্বিধা কাজ করে, অথচ মুসলিম হিসাবে এটা কি আমাদের জন্য লজ্জাজনক নয়? বিষয়টিকে আমাদের আলসেমী বললে হয়ত ভুল হবে না। আমাদের জীবনের যেকোনো বিষয়ের সমাধান যেখানে আল্লাহ কু’রআনের মাধ্যমে জানিয়ে দিয়েছেন সেখানে আমাদের আলসেমী হলো আমরা সেটার অর্থ বুঝার চেষ্টা করছি না, গবেষণা করছি না, মনে শঙ্কা থাকলেও দূর করছি না। সমস্যা দেখা দিলে একে ওকে জিজ্ঞেস করেই আমরা ক্ষ্রান্ত। ফলে দেখা যায়- দ্বন্দ্ব ঝেড়ে একটা পরিষ্কার ধারণা নিয়ে আমরা চলাফেরা করি না। অতএব, আত্মশুদ্ধি তো হলোই না অতঃপর আত্মতুষ্টি হবে কিভাবে?

এদিকে নিজেদের অজ্ঞতার কারণে সামান্য একটা আত্মতৃপ্তি অর্জন থেকে আমরা পিছিয়ে আছি। আত্মতৃপ্তির প্রসঙ্গে বলতেই হয়- আজকাল আমাদের বস্তুবাদী চাওয়া-পাওয়া এতটাই বেড়েছে যে, আমরা ভেবেও দেখিনা- সেই শ্রেষ্ঠমানব রাসূল মুহাম্মাদ সাঃ এর জীবনী কেমন ছিলো। কতই বা আরাম আয়েশে জীবন কাটাতে পেরেছিলেন? একদিন পেট পুরে খেয়েছেন এমনও জানা যায় না। আর আমাদের অবস্থা হলো- আমরা খাওয়া, পরা, দেয়া নেয়া- ইত্যাদি সকল বিষয়ে এমন চাহিদা নিয়ে বসি, এমন পথে আমাদের সময় শ্রম খরচ করি- যার হিসাব নেই। এদিকে ছোট একটা উদাহরণ দেই-যেমন… ‘পানির অপচয়’। আমরা অনেকেই দেখা যায়- গোসল হোক কিংবা যেকোনো কাজে আমরা একজন, প্রায় দু’জনের পানি খরচ করি, খাবার খাই, সেই সাথে ঝুটাও করি। বেহিসাবী জীবন যাপন। আত্মতুষ্টি আসবে কি করে? শুধু তাই নয়- আমরা চলতে ফিরতে সামান্য একটা প্রাণী’র প্রতিও দয়া দেখাই না, তাহলে আমাদের মধ্যে মানবতাই বা সৃষ্টি হবে কিভাবে। সমাজে বিশৃংখলা তো এভাবেই সৃষ্টি হচ্ছে। আমরা অন্যের দোষারোপ করছি- যেখানে নিজেই দোষে দুষ্ট। অতএব- এসব আত্মিক সমস্যাবলীর মধ্যে নিজেকে রেখে বিবেচনা করতে হবে, আমি কতটুকু শুদ্ধতা অর্জন করেছি। সবশেষে- আত্মশুদ্ধির জন্য অবশ্যই একটা কথা মনে রাখতে হবে- যেমনটা হাদিসে বলা আছে- হয় আমি আল্লাহকে দেখছি, না হয় আল্লাহ আমাকে দেখছেন’। আর এই চিন্তা যদি একটা মানুষের মধ্যে সার্বক্ষণিক কাজ করে সে কি কোনো ভুল পথে এগুতে পারে? না…

Hits: 4

Comments
Loading...