Hits: 1

দেবদাস

0

কিশোর আমার সেই কিশোরী
মনে পড়ে অতীতের কত কথা বুলি।
পুকুর ঘাটে শ্যাওলা তল্‌
ঢেউ খেলিয়া যেত জল।
চন্ডি দাসের মত আমি বড়শি হাতে
রোজ বসে থাকতাম ঘাটে
তারি অপেক্ষায় অটল।
জলোচ্ছবি তার দুলিত তরঙ্গে
হাসিতাম আমি সেই আরোগ্যে
সচ্ছ জলের মত টল মল।
পাকা বাড়ির লোহার খিড়কিতে
দাঁড়িয়ে তুমি যখন চুল বাঁধতে
আমের ডালে বসে জোড়া পাতার ফাঁকে
আমার সকরম্নণ দৃষ্টি শুধু তোমারে ডাকে
সাগরের মত কল কল্‌।
আজো একলা হেঁটে বেড়াই সেই চেনা পথে
আম তল জাম তল সেই শ্যাওলা পড়া ঘাট।
এখনো আসে আমের পল্লব
ফুটে কচুরি পানার ফুল সেই ঝিলে
পুকুরের পূর্ব পাড়ের সেই ডুমুর গাছ
কত ডুমুর পেকে আছে তাতে।
এখনো রাত এলে চাঁদের আলোয়
খেলা করে জোনাকি ফুলেরা হেসে থাকে
সুগন্ধ ছড়িয়ে, বুক ভরে আমি সেই গন্ধ নিই।
পার্থক্য শুধু সে সময় আমরা দু’জন
আর এ সময় আমি একা।
এখনো প্রভাতে শিশিরে স্নান করে ঘাস
স্যাঁতস্যাঁতে দিনের দিগুন রোদে ভাজা ধুলি
সবুজের স্নিগ্ধ শাঁস।
কিশোরী এখন বধু হয়েছে
আমি হয়েছি দেবদাস।।

Hits: 1

Comments
Loading...