Hits: 2

স্মার্টনেস ইজ….. ? পর্ব- ১

0

স্মার্ট হতে গিয়ে লাইফটাকে খুব বেশি কমপ্লিকেটেড করাবার প্রয়োজন নাই। সহজ পথেই স্মার্ট হওয়া যায় অনায়াসে। অনেককে দেখেছি স্মার্ট হতে গিয়ে নিজের স্বকীয়তা হারিয়ে ফেলতে। আসলে অনেকেই বুঝতে পারে না যে, স্মার্টনেস কী এবং কীভাবে ? ফলে এরা বিকৃতির অবয়ব ধারণ করে অগোছালো হয়ে পড়ে। কিংবা আরেকজনের কোনো বিষয়কে নিজের উপর ইনপ্লিমেন্ট করতে গিয়ে হতাশায় ভোগে। এমনটা ঘটে কখনও সচেতনে আবার কখনও অবচেতনে ।

চলুন , স্মার্ট হই !!

১. আপনার মাথার চুলে আপনি যেভাবে ইচ্ছে স্টাইল করতে পারেন। একান্ত আপনার পছন্দের ভিত্তিতে ঠিক করুন কিভাবে তা করবেন। তবে খেয়াল রাখুন আপনার এই স্টাইলে আপনাকে বিদঘুটে লাগছে কিনা। আপনার অবয়ব ঠিক আছে কিনা। বেশ, এবার নিয়মিত চুলের যত্ন নিন। শ্যাম্পু করুন। পরিষ্কার রাখুন।

২. দাঁড়ি রাখতে পারেন। গোঁফও। আপনার ইচ্ছে। এখনকার সময়ে তো তরুণরা স্টাইল করেই দাঁড়ি রাখে। আপনাকে যেভাবে দেখতে ভালো লাগে সেভাবে রাখুন। গোঁফের ব্যাপারেও একই কথা। কিন্তু আপনি যেনো বহুরুপী না হোন। আজ দাঁড়ি রেখেছেন তো কাল ক্লিন শেভ । ভেবে দেখুন – আপনাকে কতটা আনস্ট্যাবল লাগছে ?

৩. শার্ট, টি শার্ট, পাঞ্জাবী, গেঞ্জী- প্যান্ট, পায়জামা, লুঙ্গি ( স্টাইল মানে লুঙ্গি এডটা দেখেছেন নিশ্চয়ই !! ) যা ইচ্ছে পরতে পারেন। আপনি যেটা পরতে কম্পোর্ট ফিল করেন সেটাই পরেন। তবে ফরমালিটি মেনে চলুন। কোথায় , কখন, কী পরতে হবে সেটা খেয়াল রাখুন। একাডেমিক ভাইভা দিতে গিয়ে দেখেছি কতোবারই কতো বন্ধু ভুল করেছে । বকা শুনেছে। আপনার বেলায় যেনো সেটা না হয় । যেটাই পরুন না কেনো খেয়াল রাখুন আপনাকে যেনো ভালো দেখায়। আপনি যেনো কাপড় স্বল্পতায় না ভোগেন। আপনার মুভিং এ যাতে কোনো প্রকার প্রবলেম না হয় সেটাও মাথায় রাখেন। কিছু ছেলে- মেয়েকে দেখলে বুঝা যায় কতোটা বেখেয়ালি তারা। সকল জায়গায় যেনো আপনি এডাপ্ট করতে পারেন সে ধরনের পোষাকই বেটার।

৪. হাতে ঘড়ি কিংবা বেসলেট পরতে পারেন। পছন্দটা ঠিক রাখুন। যেনো আপনাকে মেয়েলিপনায় না পেয়ে বসে। নিজের স্বকীয়তা আর রুচির বিষয়টা একবার ভাবুন।

৫. এ ব্যাপারে ফাইনাল কথা হলো আপনি যেনো অস্বাভাবিক না হোন। স্বাভাবিকতাই সৌন্দর্য। বেপরোয়া আচরণ পরিত্যায্য। আর হ্যাঁ, অবশ্যই আয়নায় নিজেকে একবার দেখুন। শুনুন আপনার বিবেক কী বলে? বিবেককে সাড়া দিতে চেষ্টা করুন।

চলবে…

Hits: 2

Comments
Loading...