Hits: 1

আজ মোরা এক…

0

হ্যা, ছাত্র ইউনিয়নের ভাইরা- তোমাদের সাবাসী জানাই, নারীর সম্মানের জন্য গতকাল তোমরা আন্দোলন করলে। পুলিশের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে প্রতিবাদী হয়েছো- তাই তোমাদের বাহবা দিই। তোমাদের এই যৌক্তিক কর্মসূচীতে আজ আমরা তোমাদের পাশে, ছাত্র-জনতা তোমাদের পাশে। আর নৈতিকভাবেই পুলিশ বাহিনীর বিপরীতে পাহাড়ের ন্যায় দৃঢ়। কারণ তোমাদের দাবি ছিলো সঠিক, যেমনটি আমাদের দাবি হয়ে থাকে…

আমরা প্রায়ই পুলিশের এরূপ হীন ও নগ্ন আচরণের শিকার হই। পুলিশরা পাখির মতো গুলি করে আমাদের ভাইদের বুকে। শুধু তাই নয় জাপটে ধরে একেবারে কাছ থেকে টার্গেট করে গুলি করে। পঙ্গু করে দেয় সারাজীবনের জন্য। অপরাধ নেই, অথচ দিনের পর দিন রিমান্ড মঞ্জুর। সুতরাং, পুলিশ তো এখন আর রক্ষক নয় বরং জনগণের জান-মালের ভক্ষক। তাই ইচ্ছে করে-পুলিশের টুটি চেপে ধরি।

আচ্ছা! আজ কেনো “তোমাদের” “আমাদের” শব্দ দুটো দিয়ে ভাই-ভাই বিভেদ সৃষ্টি করছি? দল-মত ভুলে আমরা তো মানুষ। দাবী যেখান থেকেই উঠুক, তা সত্য হলে আমরা না হয় অন্তত সেই জায়গায় এক হই! একতাই তো শক্তি। কি আটকে দেয় আমাদের? দলীয় আদর্শ? কিন্তু আদর্শ বাস্তবায়নের পথে যেসব পদক্ষেপ ও কর্মসূচী দরকার-তাতে কি অন্তত এক হওয়া যায় না?

যেখানে আমরা সবাই প্রত্যক্ষ করছি দেশের শাসক স্বৈরাচার হয়ে গেছে, এখানে অত্যাচারীদের পোস্টিং দেয়া হচ্ছে আর পুলিশকে দিয়ে অন্যায়কারীদের সেল্টার দেয়া হচ্ছে- এসব কি মেনে নেয়া যায়?

যে পুলিশকে নিরপেক্ষ হয়ে মানুষের সেবা করার কথা ছিলো আজ তারা টাকার কাছে বিক্রি। তারাই অন্যায়কারী। সুতরাং- তাদের হাতকে রুখে দিতে হবে। এসো এক হই আজ পুলিশের বিরুদ্ধে… অন্যায়ের বিরুদ্ধে…

Hits: 1

Comments
Loading...