Hits: 1

বন্ধু ও ভর্তি পরীক্ষার্থী (একটি বাস্তব কাহিনী)

0

বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার আগে আমরা এক স্কুলে পড়তাম। আমরা হাইস্কুল ফ্রেন্ড। কিন্তু আমি ক্লাস নাইনে থেকে এসএসসি পরীক্ষা দেই অন্য স্কুল থেকে। কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়ায় আর পরীক্ষা দেইনি। তাই আমি ওর এক বসরের সিনিয়র হলাম। অন্যদিকে আমি প্রথমবারে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাই। আর আমার বন্ধুটি দ্বিতীয়বারে আমারই ক্যাম্পাসে ভর্তি হয়। অর্থাৎ ও এখন আমার দুই বসরের জুনিয়র। কিন্তু আমি কোনদিনও ওকে আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের কাছে বন্ধু ছাড়া অন্য পরিচয় দেইনি। ও তাই করে সবার কাছে। কিন্তু একি হল আমার বন্ধুটির।
ঘটনা একঃ
প্রথমদিনের ঘটনা। আমি বন্ধুটির সাথে নিয়মিত দেখা করতাম। তাই ওকে ফোন দিলাম।
– হ্যালো, কই তুই?
– বন্ধুটি বলল, কেন?
– আরে, কই তুই?
– আমি ক্যাফেটেরিয়ার কাছে।
– কি করিস?
– ভর্তি পরীক্ষার্থী আছে।
– কি আসব নাকি?
– না না…পরে বলেই ফোনটা কাটল।
আমি কিছু মনে না করে চুপচাপ জেলা সমিতির তাবুতে বসে আছি। ওমা! হঠাৎ দেখি বন্ধুটা আমার সামনে দিয়ে যাচ্ছে সাথে দুটো মেয়ে। আমি একটু হাসি দিয়ে তাকালাম ওর দিকে। একি কাণ্ড! ও আমার দিকে একবার তাকিয়ে আর তাকাল না। কথাও বলল না। চলে গেল। পাশে বসা ছোট ভাইরা বলল, ভাই আপনার বন্ধু তো মেয়ে নিয়ে যাচ্ছে কিন্তু আপনার সাথে কথা বলল না কেন? আমি একটু হাসি দিয়ে ওদের দিকে তাকালাম। যাইহোক, আমি আমার একজন পরীক্ষার্থীকে রেখে আসতেছি আর ওমনি ওর দেখা পেলাম। এইবারও কথা বলল না। এখন বুঝলাম সাথে মেয়ে থাকলে বুঝি বন্ধুদের সাথেও কথা বলা যায় না। তাই হল ও ওদেরকে বাসে তুলে দিয়ে আমাকে ফোন দিল।
ঘটনা দুইঃ
পরের দিনের ঘটনা। প্রতিদিনের মত ওরে ফোন দিলাম।
-হ্যালো, কই রে তুই?
– জেলার তাবুতে। আয় খাবার আছে।
– আসতেছি।
তারপর এসে দেখি নাই। পরে অবশ্য দেখা পেলাম। তারপর কথা হল। এইভাবে কিছুক্ষণ থাকার পর ও রুমে গেল। গিয়ে ফোন দিল। আমি তাবুতেই ছিলাম।
-হ্যালো, ওই তোর রক্তের গ্রুপ কি?
– ও পজিটিভ।
– রক্ত দিবি?
– হুম।। আচ্ছা দিবো।
– তাহলে আমি আসতেছি।
– আয়।
তারপর আমরা রক্ত দিতে গণ স্বাস্থ্য হাসপাতালে গেলাম। গিয়ে আর এক কাণ্ড! যে ব্যাক্তি রক্ত নিবে তিনি নাই। ফোন দিয়ে জানতে পারলাম উনি অনেক পরে আসবে। তাই আমরা রাগ করে স্মৃতিসৌধ গেলাম। আমরা আর রক্ত দিবো না বলে চলে এলাম। সন্ধ্যার দিকে কাম্পাসে আসলাম। তারপর ও তার ভর্তি পরীক্ষার্থীকে ফোন দিল। মুক্ত মঞ্চে নাটক দেখবো বলে। অনেক কথার পর মেয়েটিকে রাজী করাল। তারপর আমাকে নিয়ে ও মেয়েদের হলে গেল মেয়েটিকে আনতে। পরিচয় পর্বের পর আমরা হাঁটতে হাঁটতে মুক্ত মঞ্চের দিকে গেলাম। তারপর কফি খেলাম। মেয়েটি ফলাফল দেখার কথা বলল তাই আমার বন্ধুটি ওয়াইফাইএর মাধ্যমে দেখার জন্য সে একটু টিএসসির দিকে গেল। আমি বললাম- পরে দেখি হয়ত জায়গা নাও পেতে পারি। আমি বললাম তাহলে আমি জায়গা ধরি গিয়ে। ও রাজী হল। তারপর মেয়েটি আমার সাথেই যেতে চেয়েছিল। কিন্তু বন্ধুটির দিকে তাকিয়ে মেয়েটি ওর সাথেই গেল। আমি মুক্ত মঞ্চে গেলাম। জায়গাও রাখলাম। ১০ মিনিট পরে আসলো। আমি ডাকলাম। ও শুনল। দেখল। ডাকল। কিন্তু আমার সাথে আর কোন কথা না বলেই ও মেয়েটিকে নিয়ে আমার সামনে দিয়ে অন্য এক জায়গায় গিয়ে বসলো। মেয়েটি আমার দিকে তাকাতে তাকাতে গেল। আর আমি একা বসে বসে নাটক দেখলাম আর ভাবতেছিলাম দুইদিনের একটি মেয়ে পেয়ে কিভাবে ও আমাকে এড়িয়ে গেল। তারপর ভাবলাম ব্যাপার না। আর অপেক্ষা করতেছিলাম হয়তো সে আমাকে ফোন দিবে নাটক শেষে। কিন্তু কই দিল না যে! হ্যায় বন্ধু! হ্যায় নারী! কেন এভাবে বন্ধুত্ব হারিয়ে যায়? কেন বদলে যায় মানুষগুলো। কোনটি বড়? বন্ধু না দুইদিনের নারী??????????

Hits: 1

Comments
Loading...