আমরা যারা ফ্রি মাইন্ডেড…

সমাজে কিছু সম্পর্ক কিংবা সম্পর্কের বাইরেও কিছু পরিচিতি থাকে যেখানে সতর্কতা অবলম্বন করে চলতে হয়, অথবা ব্যক্তিজীবনের ওপর যাতে বিরূপ প্রভাব না পড়ে তাই পারলে ক্ষেত্র বিশেষে এড়িয়ে চলা লাগে।
সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করছি পরে, তার আগে সম্পর্কের বাইরে গিয়ে যদি বলি-
১/ বিয়ের আগে আপনার কাউকে ভালো লেগেছিলো এমন;
২/ পাত্র/পাত্রী খুঁজতে গিয়ে যেসব সম্পর্ক আপনার কাছে এসেছিলো।
অবিবাহিত অবস্থায় মনটা অনেকভাবেই বিচলিত হয়। ধরে নিলাম- বিয়ের আগে আপনার কাউকে ভালো লেগেছিলো, তবে কোনো এক কারণে সে আপনার জীবনসঙ্গী হতে পারে নি, বর্তমানে আপনি সেই অতীত ভুলে বিয়ে করেছেন। এবার বলবো- যেহেতু সেই ছেলে/মেয়েটি আপনার মন-মানসিকতায় নেই, তাই নিজের জীবনসঙ্গীর সাথে সেই ব্যাপারে কোনো আলোচনা করবেন না, এমনকি সেই অতীতের সাথে পুনরায় দেখা হলেও অন্তরঙ্গতা সৃষ্টি করা উচিত নয়। আর এমন যদি হয় আপনারই কর্মস্থলে বা কোনো মিটিং এ দেখা হলো- সেক্ষেত্রে প্রয়োজন ছাড়া কথা না বলাই শ্রেয়। কারণ- শয়তান শুধু বিয়ের আগে নয় বিয়ের পরেও মনটাকে বিচলিত করে, তাই মনটাকে পবিত্র রাখুন।
এবার, বিয়ের আগে আপনার বাসায় ঘটকের মাধ্যমে যেসব সম্পর্ক এসেছিলো সেগুলোর মধ্যে আপনি যাদের বাদ দিয়েছেন কিংবা যারা আপনাকে বাদ দিয়েছিলো; দুয়া করবেন সেই ছেলে/মেয়ের প্রভাব যাতে পুনরায় আপনার বৈবাহিক জীবনে না পড়ে। আর যদি সেই ছেলে/মেয়ের সাথে বিয়ের পর পুনরায় দেখা হলেও  আগ বাড়িয়ে কথাবার্তা বলা বা তাদের পরিবারের সাথে অন্তরঙ্গতা সৃষ্টি করা বিচক্ষণতার কাজ নয়। কারণ আপনি যদি সেই ছেলে/মেয়েকে বাদ দিয়ে থাকেন, তাহলে পুনরায় যখন আপনাদের মধ্যে কথাবার্তা হবে তখন শয়তান উসকানী দেয়ার পাশাপাশি সেই ছেলে/মেয়েটি আপনার জীবনসঙ্গী কেমন- এটা নিজের সাথে তুলনা করা শুরু করবে। আর আপনাকে যদি বাদ দেয়া হয় তখন আপনার মধ্যে সেই অপরপক্ষের জীবনসঙ্গী’র সাথে “দেখি তো! কেমন? আমার চেয়ে কতো ভালো”?- এভাবে হিংসা- তুলনা কাজ করবে। আর শয়তান আপনার বা তার মনে কুমন্ত্রণা দিলে উভয়ের সাজানো সংসার ধ্বংস হতে পারে।
এবার সম্পর্কের মধ্যে থেকে যদি বলি- কিছু সম্পর্ক যেমন- দেবর, শালী, সহোদরের বাইরে ভাই-বোন বা বিয়াই-বিয়াইন—এদের মধ্যে একটা সীমা রেখে সম্পর্ক বজায় রাখতে হয়। যদিও অনেকে বিয়াই-বিয়াইনদের সাথে ঠাট্টা মশকরা এই পর্যায়ে নিয়ে যান, যাকে সীমা অতিক্রম বললে ভুল হবে না। যদিও অনেকে এটাকে জায়েজ বলে মনে করেন!

 

আফসোস! আমরা অনেকেই এই বিষয়গুলো বুঝি না। আর না বুঝার কারণে বিশেষ করে ১ ও ২ নং ক্ষেত্রে আগ বাড়িয়ে কথা বলতে যাই, ধারণাটা এমন-“বিয়ে হয় নি তো কি হয়েছে? ফ্রি মাইন্ড নিয়ে থাকো, এতো গোড়ামী করার কি আছে”?  যদিও বেশি ফ্রি মাইন্ডেড হওয়া ভালো না…

আমরা যারা ফ্রি মাইন্ডেড… আমরা যারা ফ্রি মাইন্ডেড… Reviewed by বায়ান্ন on April 25, 2016 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.